Bengali Poem on Love,Valobashar Kobita Bengali Love Poem

Bengali Poem on Love,Valobashar Kobita Bengali Love Poem :

Bengali Poem on Love,Valobashar Kobita Bengali Love Poem for you.আপনার ভালোবাসার মানুষটির জন্য আমাদের বিশেষ নিবেদন Bengali Poem on Love..ভালোবাসা এমন এক অনুভূতি যা কথায় বা ভাসায় ব্যক্ত করা যায় না কেবল অনুভব করা যায় ।এই ভালোবাসার অনুভূতি বিভিন্ন মানুষের কাছে বিভিন্ন রকম ।আবার কেউ জীবনে ভালোবাসা পায় আবার কেউ হারায় । পাওয়ার আন্নদই হোক আর হারানোর বেদনা প্রতিটি মানুষের জীবনে ভালোবাসা অত্যন্ত প্রয়োজন । তাই আপনার ভালোবাসার মানুষটির জন্য আমাদের বিশেষ নিবেদন Bengali Poem on Love, Bangla Valobashar Kobita Bengali Love Poem.



Bengali Poem on Love



Bengali Poem on Love প্রতীক্ষায়  :


কথা, ভালাে আছাে নিশ্চই
বিস্ত বৈভবপূর্ণ সুখ প্রাসাদে
চারিদিকে ছড়িয়ে দীপ্ত আলাের রােশনাই
প্রকাশ করেছে নিজেকে উজ্জ্বল মহিমায়
কিন্তু আমি জানি, তােমার মনের বড় অসুখ
হৃদয় তােমার ক্ষত বিক্ষত, বিধ্বস্ত;
বাহ্য প্রকাশমান ঔ জ্জুল্যে যতই উদ্ভাসিত কর
সে দীপ্তি যে ক্রম স্তিমিত।
নারী হয়েও মাতৃত্বের হাহাকার
তােমায় কুরে কুরে খায়।
স্বজনের মেকি ভালবাসায় স্তব্ধ তুমি
মনের মানুষের প্রীতিহীন স্পর্শ
তােমার চোখে বৃষ্টি ঝরায়।

কথা, তােমার মনে আছে ঋদ্ধিকে?
যার ভালবাসায় পুষ্ট হয়েছিল তােমার যৌবন
যার হৃদয়ের রানী হওয়ার কথা ছিল তােমার
একেবারে ভুলে গেছ কি?

জানাে তােমায় না পাওয়া-ব্যর্থতার চাবুক
আজ প্রতিষ্ঠিত করেছে তাকে
কিন্তু অন্তরে আজও সে ফকির
এখনও তার হৃদয়ে সদা জাগরুক
অতীতের ফেলে আসা মধুময় স্মৃতি
এখনও শীতের সকালে তুমি তার আদুরে রােদ
এখনও গ্রীষ্মের দুপুরে তুমি তার উপন্যাস
এখনও বর্ষন মুখর দিনে -
তুমি তার মায়াবী চপল নায়িকা

আচ্ছা কথা, তুমি কি পারাে না
তার শুন্য হৃদয়ে মমতার প্রলেপ হতে ?
তুমি কি পারাে না।
তার ব্যথাদীর্ণ মরীচিকায় মরুদ্যান হতে ?
সে যে বড় ভালবেসেছিল, বড় ভালবাসে তােমায়।

যে সমাজ নারীর বন্ধ্যাত্বকে ব্যঙ্গ করে
মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যেতে প্ররােচিত করে,
যাদের সাহচর্য জীবনদীপ নিভিয়ে দিতে আসে
যারা জীবনের স্বাভাবিকতাকে ভুল ব্যাখ্যা করে
কি আশায় তুমি বুক বাঁধ
নব প্রভাতের?

আচ্ছা কথা, তুমি পারাে না -
ঝদ্ধিকে আরাে সমৃদ্ধিশালী করতে?
অন্যায় অমানবিক বেড়াজাল ছিড়ে
পারাে না বন্ধু
তােমার জীবন সাথীকে চিনে নিতে?
অতীতের স্মৃতি না হয় বাস্তব হয়ে উঠুক
তােমাদের মধুর মিলনে।



Bengali Poem on Love প্রেয়সী :



সাধনায় মেলিলেও ঈশ্বর তবু প্রেম মেলে না
প্রেম যে কঠিন বস্তু মন কেন বোঝ না। 


কতবার দেখেছি তোমায় তবু হয়নি দেখা শেষ

হৃদয়ে রয়ে গেছে সেই প্রথম দেখার রেষ। 


তুমি দুর্লভ জানি তবুও ছিল আশা

তাই বুঝি বারবার জের টেনে আসা। 


ভালবাসা জানে না বয়স জাত কাল 

তুমি কি আঁধারে আছ দেখনি সকাল।


ক্ষনিকের তরে কি ভালোবাসো না আমায় 

সেই সান্তনা নিয়ে নেব যে বিদায়।


প্রিয়ার যে কী রুপ শুধু বোঝে প্রিয়তম 

আমি কি তোমার কাছে এতই নূন্যতম। 


বোঝ না কি ওগো প্রিয়া ওগো অনুপমা 

কত যে ভালোবাসি তোমায় নাই পরিসীমা। 


যোগীয়েছ নানা কাজে কতই প্রেরনা 

আজীবন করিব শুধু তোমারই সাধনা। 


কত দূরে যাবে তুমি হবে রাজরাণী

সেদিন তুমি সবার কাছে হবে কত মানী। 


মনে পড়বে না তোমার এই অধমেরে

চলে ঠিক যাবে তুমি চোখ আড়াল করে।


ছল ছল দু নয়নে দেখব তোমায় আড়াল থেকে

চোখের জল বাগ মানবে না তোমার নতুন সাজ দেখে। 


এত নির্মম এত নিষ্ঠুর হৃদয় তোমার 

কত নতুন হয়ে যাবে তোমার আপনার। 


সকলের সাথে তোমার জীবন হবে সুখকর 

শুধু আমিই রয়ে যাব তোমার পরিচিত এক পর ।




Bengali Poem on Love অবােধ প্রেম :





অন্তমিত সুর্যের রঙিন আলােকে মনে পড়ল আপন প্রেয়সীরে
মনে পড়ল তােমার সেই শুচিস্মিতা হাসিটি
গােধুলির সৌন্দর্য তােমার হাসি মিলেমিশে একাকার
আমিই শুধু কদর্য এসময় তােমার কাছে একেবারে নিরাকার।
অথচ আমি তােমারই কথায় রচনা করেছি এক বৃহৎ মালা
প্রতিটি ফুল প্রতিটি পাপড়ি অন্তরে অন্তরে গাঁথা।
যেদিন দেখলাম তােমার উন্মাদ করা মধুময় মুখটিরে
সেদিন হতে দিয়েছি তােমায় আমার একান্ত হৃদয়টিরে।

মনে পড়ে তােমায় সদা দিবানিশি
চাদ ও মুখখানি এক হয়ে মিশি
ভুলিবার শতেক প্রয়াস ব্যর্থ করে দেয় তােমার মুখটি।
বলাে - বলাে প্রিয়া কেমনে ভুলব তােমারে?
তােমার মুখটি সদা জাগে মনে ভুলে যাই কাজে বার বার
আমি ছাড়া তােমার এমন আপন কে হবে আপনার।
তােমার কথা ভাবলে মনে অশ্রু বয়ে আসে
ভালােবেসে না পাই যদি সেইটির আফশােসে।

মাঝরাত্রির মাঝখানেতে তােমায় মনে পড়ে
তােমার সাথে করছি খেলা স্বপ্নেরই সেই দেশে
কত হাসাহাসি কত লুকোচুরি চলছিল সেই দেশে
এমন সময় দস্যু বেশে কে প্রবেশ করল এসে
মারল আমায় ঠেসে ধরল তােমার হাত
তােমায় নিয়ে গেল কোন অন্ধকার তমসালয়ে,
পড়ে রইলাম আমি, কত চীৎকার করে বললাম
ওগাে ছেড়ে দাও ছেড়ে দাও আমার প্রিয়েরে
কিন্তু সেই দেশে কেউ শুনল না আমার আর্তনাদ।

হঠাৎ বিছানা ছেড়ে দেখি প্রভাত হয়েছে।
বিদীর্ণ করি পূরবদিক উষাদিদি রঙিন হাসির ডালি সাজিয়েছে।
ভাবলামপরজন্ম বলে যদি কোন বস্তু থেকে থাকে
প্রার্থনা জানাই ঈশ্বরে তখন পাই যেন তােমাকে।



Bengali Poem on Love স্মৃতিমন্থন : 





সেদিন পূর্নিমা তিথি ; জ্যোৎস্না প্লাবন ডাকিছে শশধর
চারিদিকে বিরাজ করিছে শুভ্রতা,শান্ত্প্রফুল্লতা,
কিন্তু সবই অপ্রবিষ্ট রইল আপন অন্তরে।
সমীর চলিছে লয়ে কত গন্ধ --স্বাদ সারা নিশীধরে
আমারে দিল এমনই গন্ধ  ---এমনই স্বাদ , যা আমারে করিল
বিহ্বল ব্যথিত অবচেতন ---পরিচিত তোমার সেই সুমিষ্ট গায়ের গন্ধ
একে একে আমি করলাম স্মরণ

তোমার আমার সেই আনন্দে ও নিরানন্দে ভরা পুরানো স্মৃতিগুলি
পথের পাশে ফুটেছিল এক গন্ধবিহীন কুসুমকলি ;
বহুজন চলেছে পথপরে
কেউ দেখেনি গন্ধহীন ফুলটিরে ,

কত দিনান্তের অবসানে চলেছে এক পথিক সেই পথ পরে ,
দেখল গন্ধহীন --- বহুজন অদৃষ্টপূর্ব সেই ফুলটিরে
পথিক করল সেবা সেই ফুলটিরে ভালবেসে ,
ফুলটি হল বড় তার গন্ধহীনতা আজ আর নেই  ,
তারই গন্ধে সুবাসিত জনপথ।

একদিন দেখল পথিক , নেই তার আদরের ফুলটি
লয়ে গেছে কোন্ পামরে।
আমি আজ পথিক সদৃশ ,তুমি কুসুমের ন্যায়
তোমারে ভালবেসেছি এই-ই আমার চরম অন্যায়।
তুমি ত কারনি প্রতিবাদ যেদিন তোমায় একটুএকটু কোরে ভালবেসেছিলাম
কেন করনি প্রতিবাদ আমার একটু ন্যায়ের তরে।
কি পেয়েছি আমি - ভালবাসা , শ্রদ্ধা , সম্মান ?

না না চারিদিকে শুধু  হাহাকার আমার সবদিকে অপমান।
তবুও কি পেরেছি আমি  ; তোমায় মন থেকে দূরে সরাতে
যতই ভুলতে হয়েছি সচেষ্ট তত্ই এসেছি খুব কাছে।
যদি পারতাম চিরে দেখাতে -- আমার উন্মাদ বুকটিরে,
দেখতে তুমি কত জ্বালা --কত যন্ত্রনা।

কত দুঃখ , কত ব্যাথা সঞ্চিত সেই স্থানে
আবৃত রয়েছে সেই স্থান কত কান্না জলের স্তরে
তুমি বলতে এ্যই আমি ভীষন কালো
তবে তুমি কেন আমায় এত বেশী বাস ভালো
বুঝিনি সেদিন কালো বলে তুমি নিজেরে নিয়েছিলে সরিয়ে,
অন্যকে সুখি করবে তুমি বরমাল্য পরিয়ে।

বুঝিনি তোমার কথা মধ্যে এতখানি ছিল ছলনা
আমায় বাসো না ভালো এই কথা কি তখনই বলা গেল না।
স্নেহ ,মমতা ,প্রেম ,ভালবাসা জোর করে পাওয়া যায় না ,
তোমায় কি আমি ভালবাসতে জোর করতাম ,
মন বলে যে জগৎ আছে তা কি আমি জানি না ,
জানো প্রিয়া ভালবাসায় আমি চির কাঙাল হয়ে রয়ে গেলাম
কেউ আমায় ভালবাসে না
আমায় নাই বা ভালো বাসলে তুমি
তবুও তোমায় তো আমি ভালবাসি ,
আজীবন তোমায় ভালবাসব ,
এই নিয়েই তো বঁেচে আছি।

আজ চন্দ্রালোকিত জ্যোৎস্নার সমুদ্রে রহিলাম সিক্ত
তোমায় ভালবেসে আমি হবো যে রিক্ত।
রিক্ত হাতে স্মৃতি নিয়ে বুকে এবার আমি ফিরি
স্বামী সন্তান নিয়ে সুখী হও তুমি - এই প্রার্থনা করি।




Bengali Poem on Love প্রত্যাশায় :




না, আর আসে না সে
আমার হাট করে খােলা মুক্ত দুয়ারে
আসে না সে আর কোনও রবিবারে।
কিন্তু আমি তারই প্রত্যাশায়
বসে থাকি উন্মুখ হয়ে
কখন শােনা যাবে আমার পরিচিত
তার সেই ছন্দ জড়ানাে মধুর পদধ্বনি।

মনের দুয়ারে তার নিত্য আসা যাওয়া
চোখ দুটিতে উদ্ভাসিত হয়ে ওঠে
তার সেই কান্তিঘন লাবণ্য মুখখানি।
ক্ষ্যাপা বাতাস মাঝে মাঝে এনে দেয়
উন্মাদ করা তার শরীরের সেই মিষ্টি ঘ্রাণ
আমি তাতে কেমন যেন অবশ হয়ে যাই
ছােট্ট কুটির মাঝে হঠাৎ যেন শুনতে পাই
তার সেই আবেগ ঘন নেশা ধরানাে কণ্ঠস্বর
আমি চট করে উঠে গিয়ে দেখি
কই কেউ আসে না তাে
আমি তখন স্পষ্ট অনুভব করি
এ আমার পাগলামির দুরন্তপনা।

রাতের নিন্দাটুকু বাদে
সর্বদা বসে থাকি বেকারত্বের দম বন্ধ করা
কঠিন পােষাক পরে
কখনও হয়ত গিয়ে বসি দক্ষিণের ব্যালকনিতে
দেখতে পাই তার কর্ম জীবনের ব্যস্ততার হাঁটা চলা।
আজ আমার সঙ্গে তার অনেক তফাৎ...
কিন্তু রবিবার আজও আমি বসে থাকি
আমার ঘরটি সাজিয়ে তার আসার অপেক্ষায়
কিন্তু না, আর আসে না সে।

নতুনের গন্ধ না ফুরাতেই
আমি যে এত পুরানাে হয়ে গেছি...
মনের রােমান্টিকতার মূলে
বিষাদের বিষ নিয়ে
শেষ যতদিন বাঁচি
থাকব তারই প্রত্যাশায়।

শেষ রবিবার গুলিতেও আমি বসে থাকব
আমার হাট করে খােলা মুক্ত দুয়ারে
যদি সে কখনাে আসে
আপন করুণা ভরে।




Bengali Poem on Love নব বসন্ত :





ধরায় এসেছে নব বসন্ত
একে একে বিদায় নিয়েছে গ্রীষ্ম বর্ষা শরৎ শীত
এসেছে বসন্ত এসেছে নব যৌবনের উত্তাল তরঙ্গ
থেমে গেছে প্রৌঢ়-কৈশোরের অব্যক্ত যন্ত্রনা
বিকশিত করেছে নতুন পাপড়ি বসন্ত আগমনে।
এসেছে নব বসন্ত খুশির জোয়ার বইছে চারিদিকে
গাছপালা পশুপাখি মানুশের জীবনে।

পৃথিবী সেজেছে নব সাজে, মেতে উঠেছে
আকাশ বাতাস সূর্য চন্দ্র গ্রহ নক্ষত্র
বিরাজ করছে না বলা সৌন্দর্য্যের গোপন মহিমা।
ফুটেছে ফুল কাননেে কাননে সৌরভে ভরপুর
কচি কচি পাতা মিলেছে ডানা , আকাশ দিচ্ছে হাতছানি বারবার
তারই আভাস পাওয়া যায় মৃদু মন্দ বাতাসের মধুর ছন্দে।

শোনা যায় নব নব গুঞ্জন কূূজন ধ্বনি , এসেছে বসন্ত দূত
ননাই ঘর তার তবু শোনা যায় মধুর কলতান এর ওর নীর থেকে।
এসেছে নব বসন্ত মানব মানবীর অন্তপুরে
পেয়েছে শ্রেষ্ঠ রত্ন-নতুন জীবন দানের ক্ষমতা।
যা অপূর্ণ-পরিপূর্ণতা লাভ করল বসন্ত আগমনে।

আজ বিকশিত যৌবনের ফুলটি, সঞ্চয় করেছে কত মধু
আলিয়া ধেয়ে চলে সেই দিক পানে--------
ফুল আজ সংকুচিত করেছে নিজেকে
অপবিত্র হওয়ার সংশয়ে।

বসন্ত চলেছে আপন ঘরে
চারিদদিক নিস্তব্ধতা , নাই হর্ষ , নাই চাঞ্চল্য
রয়েছে শশুধু গভীর মর্মবেদনার অব্যক্ত যন্ত্রনা
রয়েছে নিরানন্দের মর্মবেদনা।